বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই, ২০২৪, ১০ শ্রাবণ ১৪৩১

ভারতের সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের জন্যই আমরা উন্নতি করতে পেরেছি: শেখ হাসিনা

ডেইলি খবর ডেস্ক

প্রকাশিত: জুন ২২, ২০২৪, ০৫:২৩ পিএম

ভারতের সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের জন্যই আমরা উন্নতি করতে পেরেছি: শেখ হাসিনা


প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ভারতের মতো এত বড় অর্থনীতির দেশের কাছে বাংলাদেশের সহযোগিতা পাওয়াটা আমাদের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। আর এ বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের জন্যই আজ বাংলাদেশ অনেক উন্নতি করতে সক্ষম হয়েছে। শনিবার (২২ জুন) ভারতের হায়দরাবাদ হাউজে দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দ্বিপাক্ষিক বৈঠক করেন। এ বৈঠকের পর যৌথ সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন শেখ হাসিনা। এ সময় মুক্তিযুদ্ধে বিজয় ত্বরান্বিত করতে জীবন দেয়া ভারতীয় সেনাদের অবদান কৃতজ্ঞতার সঙ্গে স্মরণ করে শেখ হাসিনা বলেন, 
ভারতের মতো এত বড় অর্থনীতির দেশের কাছে বাংলাদেশের সহযোগিতা পাওয়াটা আমাদের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। আর এ বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের জন্যই আজকে আমরা অনেক উন্নতি করতে সক্ষম হয়েছি।
যৌথ সংবাদ সম্মেলনে শেখ হাসিনা বলেন,দেশে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিজয়ের পর নয়াদিল্লিতেই প্রথম দ্বিপাক্ষিক সফরে এলাম। আজকে আমরা দুই পক্ষ মুখোমুখি বসে ফলপ্রসূ আলোচনা করতে পেরেছি। রাজনীতি, অর্থনীতি, বাণিজ্য, সংযোগ ইত্যাদি বিষয় নিয়ে আলোচনা করেছি। দুই দেশে নতুন করে সরকার গঠনের পর বন্ধুত্ব ও উন্নয়নের পথে নবযাত্রা শুরু হয়েছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি। তিনি আরও বলেন, দুই দেশের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক রেখে আমরা যদি কর্মপরিকল্পনা নির্ধারণ করে এগিয়ে যাই, তাহলে অবশ্যই সুনির্দিষ্ট লক্ষ্য আমরা অর্জন করতে সক্ষম হবো। টেকসই ভবিষ্যতের জন্য দুটি সমন্বিত রূপকল্প সামনে রেখে কাজ করতে আমরা দুই পক্ষই সম্মত হয়েছি। শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশ কতটা বদলে গেছে, সেটা দেখতে অন্তত বাংলাদেশ সফর করুন- এমন কথা জানিয়ে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে এদেশে আসার জন্য আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। ভারতের হায়দরাবাদ হাউজে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দ্বিপাক্ষিক বৈঠক করেন। এ বৈঠকের পর যৌথ সংবাদ সম্মেলনে হাজির হন দুই প্রধানমন্ত্রী।
এর আগে স্থানীয় সময় বেলা ১২টার কিছু আগে হায়দরাবাদ হাউজে পৌঁছালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অভিবাদন জানান ভারতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ফটোসেশনের পর হায়দরাবাদ হাউজের নিলগিরি বৈঠক কক্ষে একান্ত বৈঠকে বসেন নরেন্দ্র মোদি ও শেখ হাসিনা। আনুষ্ঠানিক দ্বিপাক্ষিক বৈঠকের আগে নিজেদের মধ্যে একান্তে কথা বলেন দুই সরকারপ্রধান।
এরপর হায়দরাবাদ হাউজের গার্নার হলে দুই প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে বসে প্রতিনিধি পর্যায়ের বৈঠক। যেখান থেকে দুই দেশের মধ্যে ১০টি সমঝোতা স্মারক সই হয়। যেগুলোর মধ্যে ৭টি নতুন আর পুরানো তিনটি সমঝোতা স্মারক নতুন করে নবায়নের সিদ্ধান্ত হয়। এরপর কৈলাস হলে দুই প্রধানমন্ত্রী যৌথ সংবাদ বিবৃতি দেন।
মূলত- ২০২২ সালের পর প্রধানমন্ত্রী মোদি এবং শেখ হাসিনার একাধিকবার বিভিন্ন অনুষ্ঠানে দেখা হলেও দুই দেশেই নতুন সরকার গঠনের পর আনুষ্ঠানিক দ্বিপাক্ষিক বৈঠক এটিই প্রথম। বাংলাদেশিদের জন্য ই-মেডিকেল ভিসা চালু করবে ভারত প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেছেন, ভারতের কাছে প্রতিবেশীই প্রথম। আর সেজন্যই বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকেই প্রথম রাষ্ট্রীয় অতিথি হিসেবে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে।বাংলাদেশিদের জন্য ই-মেডিকেল ভিসা চালু করা হবে বলে জানিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এ ছাড়া রংপুরে নতুন একটি সহকারী হাইকমিশন খোলার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে বলে জানান তিনি। ভারতকে বাংলাদেশের গুরুত্বপূর্ণ প্রতিবেশী, বিশ্বস্ত বন্ধু এবং আঞ্চলিক অংশীদার হিসেবে বর্ণনা করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ১৯৭১ সালে আমাদের মুক্তিযুদ্ধের সময় শুরু হওয়া ভারতের সাথে সম্পর্ককে বাংলাদেশ ব্যাপকভাবে মূল্যায়ন করে। বাংলাদেশের 
তিস্তার পানি বণ্টন নিয়ে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেছেন খুব শিগরই টেকনিক্যাল টিম প্রেরণ করা হবে বাংলাদেশে। নতুন সরকার গঠনের পর এই প্রথম বিদেশি অতিথি হিসেবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে আনুষ্ঠানিক দ্বিপাক্ষিক বৈঠক করলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। প্রতিনিধি পর্যায়ের বৈঠকের পর দুই দেশের মধ্যে ৭টি নতুন এবং পুরানো ৩টি নবায়নসহ ১০টি সমঝোতা স্মারক সই হয়।
 

ডেইলি খবর টুয়েন্টিফোর

Link copied!