বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই, ২০২৪, ১০ শ্রাবণ ১৪৩১

দুর্নীতি কান্ডে ৭০ লাখ টাকা ফেরত দিচ্ছেন ঋতুপর্ণা

বিনোদন ডেস্ক

প্রকাশিত: জুলাই ৩, ২০২৪, ০৮:৫৫ এএম

দুর্নীতি কান্ডে ৭০ লাখ টাকা ফেরত দিচ্ছেন ঋতুপর্ণা

দুর্নীতিকান্ডে টলিউডের অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত ৭০ লাখ টাকা ফেরত দিতে চান। রেশন বণ্টন দুর্নীতি মামলায় ইডির জিজ্ঞাসাবাদের পরই অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত এ কথা জানিয়েছেন।  মঙ্গলবার (২ জুলাই) ইডি সূত্রে এমনই দাবি করা হয়েছে।
গত জুন মাসে সিজিও কমপ্লেক্সে ইডির দপ্তরে গিয়েছিলেন ঋতুপর্ণা। পাঁচ ঘণ্টা পর কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার দপ্তর থেকে বার হন তিনি। সেখান থেকে বেরিয়ে অভিনেত্রী দাবি করেছিলেন, রেশন দুর্নীতির সঙ্গে তার কোনো সম্পর্ক নেই। তবে তার কাছে যা নথি চাওয়া হয়েছিলো, তা তিনি তদন্তকারীদের হাতে তুলে দিয়ে এসেছেন।
রেশন দুর্নীতি মামলায় গ্রেপ্তার হওয়া এক অভিযুক্তের সঙ্গে ঋতুপর্ণার আর্থিক লেনদেনের তথ্য তদন্তকারীরা হাতে পেয়েছেন বলে দাবি করেছিলেন এক ইডি কর্মকর্তা। সূত্র মতে আরো জানা যায়, ওই অভিযুক্তের সঙ্গে প্রায় কোটি টাকার আর্থিক লেনদেন হয়েছে একটি সংস্থার, যার প্রোপ্রাইটর হিসাবে নাম রয়েছে অভিনেত্রী ঋতুপর্ণার। সেই লেনদেন সম্পর্কে জানতেই ঋতুপর্ণাকে তলব করে ইডি। ৫ জুন তাকে তলব করা হয়েছিলো। যদিও সে দিন ঋতুপর্ণা সিজিওতে হাজিরা দেননি। জানা যায়, বিদেশে থাকার কারণে ইডি দপ্তরে যেতে পারেননি অভিনেত্রী। এ কথা তিনি ইডি কর্মকর্তাদের ইমেল করেও জানিয়েছিলেন।
তবে ১৯ জুন ইডির দপ্তরে গিয়েছিলেন ঋতুপর্ণা। প্রায় পাঁচ ঘণ্টা পর ইডির দপ্তর থেকে বেরিয়ে আসেন অভিনেত্রী। গাড়িতে ওঠার আগে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে ঋতুপর্ণা বলেন, ‘‘আমার সহযোগিতায় তদন্তকারীরা খুশি। এই দুর্নীতির সঙ্গে আমার কোনো সম্পর্ক নেই। তদন্তকারীরাও সহযোগিতা করেছেন, আমিও সহযোগিতা করেছি।’’
এর আগে ২০১৯ সালের জুলাইয়ে ঋতুপর্ণা এবং অভিনেতা প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়কে রোজভ্যালিকান্ডের তদন্তকারী সংস্থা ইডি জিজ্ঞাসাবাদ করেছিলো। এক সময়ে বেশ কিছু বাংলা ছবি প্রযোজনা করেছিলো রোজভ্যালি সংস্থা। সেই সূত্রেই ঋতুপর্ণার সঙ্গে সংস্থার কর্ণধার গৌতম কুন্ডুর যোগাযোগ হয়েছিলো বলে ইডির তরফে সে সময় জানানো হয়েছিলো। পরবর্তী সময়ে টলিউড অভিনেত্রীর সংস্থার সঙ্গে একটি চুক্তি হয়েছিলো রোজভ্যালির। গৌতমের সংস্থার প্রযোজনায় কয়েকটি ছবিতে অভিনয়ও করেছিলেন ঋতুপর্ণা। সে সংক্রান্ত আর্থিক লেনদেন নিয়ে পাঁচ বছর আগেই সল্টলেকের সিজিও কমপ্লেক্সে তলব করে তার থেকে তথ্য সংগ্রহ করেছিলো ইডি।

 

ডেইলি খবর টুয়েন্টিফোর

Link copied!