বৃহস্পতিবার, ২০ জুন, ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১

সাহেদদের উপকমিটিতে দেখতে চায় না আওয়ালীগ লীগ

প্রকাশিত: ০৫:০৫ এএম, সেপ্টেম্বর ৩, ২০২০

সাহেদদের উপকমিটিতে দেখতে চায় না আওয়ালীগ লীগ

ডেইলি খবর ডেস্ক: সাহেদদের উপকমিটিতে দেখতে চায় না আওয়ালীগ লীগ। বিভাগীয় উপকমিটিগুলোতে আর বিতর্কিত ও অনুপ্রবেশকারীদের রুখতে হবে। ভবিষ্যতে কোনো কারণে উপকমিটিতে সাহেদদের মতো কাউকে জায়গা দেয়া হলে তার দায়দায়িত্ব কমিটির চেয়ারম্যান ও সদস্য সচিবকে নিতে হবে। এজন্য দলের হাইকমান্ডের কাছে তাদের কৈফিয়ত দিতে হবে।দলের সম্পাদকমন্ডলীর সভায় এসব নির্দেশনা দেয়া হয়। বৈঠক সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট বিভাগীয় সম্পাদকদের সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে। পাশাপাশি প্রতিটি উপকমিটিতে সর্বোচ্চ ৩৫ জন সদস্য রাখার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। বুধবার ২ সেপ্টেম্বর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় ভিডিও কনফারেন্সে যোগ দেন দলীয় সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ সময় ওবায়দুল কাদের বলেন, আমরা নিজেরা কিছু বিষয় আলোচনা করেছি। যেসব জেলা, মহানগর ও সহযোগী সংগঠনের সম্মেলন হয়েছে সেগুলোকে আগামী ১৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যে পূর্ণাঙ্গ কমিটি জমা দেয়ার নির্দেশনা দিয়েছি। চেয়ারম্যানের সঙ্গে পরামর্শ করে প্রত্যেক সম্পাদককে ৩৫ সদস্যবিশিষ্ট উপকমিটি গঠনের পরামর্শ দিয়েছে। এ ব্যাপারে আপনার (শেখ হাসিনা) একটা গাইডলাইন চাই। ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, তৃণমূল পর্যায় পর্যন্ত সীমিত আকারে সাংগঠনিক কর্মসূচি পালনের নির্দেশনা দিচ্ছি। আগামী ২৮ সেপ্টেম্বর আপনার জন্মদিন। এটা আমরা খুব সীমিত আকারে পালন করব। আপনি না বললেও আমরা করব। জবাবে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা বলেন,আমার জন্মদিন পালনের প্রস্তাব আমি গ্রহণ করছি না। বাকিগুলোর মধ্যে উপ-কমিটিগুলো পূর্ণাঙ্গ করার সিদ্ধান্ত খুবই ভালো। এটা করা উচিত। যাতে উপ-কমিটিগুলো বসতে পারে। বিষয়ভিত্তিক সেমিনার করা, আলোচনা করা দরকার। আগামী দিনে আমাদের ভবিষ্যৎ কর্মসূচি সেগুলো ঠিক করা দরকার। উপ-কমিটিগুলো এ ব্যাপারে যথাযথ ব্যবস্থা নিতে পারবে। সভায় আওয়ামী লীগের বিভিন্ন সাংগঠনিক দুর্বলতা নিয়েও আলোচনা হয়। এছাড়া জেলা ও মহানগরে পূর্ণাঙ্গ কমিটি না থাকা, কেন্দ্রীয় উপকমিটিগুলোতে বিতর্কিত লোকদের ঢুকে পড়া, সহযোগী সংগঠনগুলোর পূর্ণাঙ্গ কমিটি না থাকার বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা হয়। উপ-কমিটি গঠনের আগে যাচাই-বাছাই করতে হবে। ইচ্ছামতো কমিটি গঠন করা যাবে না। কারও ওপরে দায় চাপিয়ে দিয়ে রেহাই পাওয়ার বিষয় নেই। এতে করে সংগঠনের ভাবমূর্তি আরও বেশি নষ্ট হয়। সূত্র জানায়, সহযোগী সংগঠনগুলোর মধ্যে যুবলীগ ছাড়া অন্য সংগঠনগুলো তাদের পূর্ণাঙ্গ কমিটি আওয়ামী লীগের কাছে জমা দিয়েছে। আগামী ১৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যে সহযোগী সংগঠনগুলোর কমিটিও আওয়ামী লীগের দফতরে জমা দিতে বলা হয়েছে।
Link copied!