বৃহস্পতিবার, ২০ জুন, ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১

করোনা ভ্যাকসিনের প্রথম ব্যাচ উৎপাদন রাশিয়ার

প্রকাশিত: ০২:৪৫ এএম, আগস্ট ১৭, ২০২০

করোনা ভ্যাকসিনের প্রথম ব্যাচ উৎপাদন রাশিয়ার

রাশিয়া শনিবার বলেছে, তারা প্রথম ব্যাচের করোনাভাইরাস ভ্যাকসিনের উৎপাদন করেছে। রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন তাদের ভ্যাকসিন বিশ্বে প্রথম করোনাভ্যাকসিন হিসেবে অনুমোদিত হবে বলে ঘোষণা দেয়ার পরে এই উৎপাদনের কথা জানানো হয়। গত মঙ্গলবার পুতিনের ঘোষণার পরে বিজ্ঞানীরা ভ্যাকসিনটির কার্যকারিতা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেন এবং বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলেছে, ভ্যাকসিনটির নিরাপত্তা নিয়ে ব্যাপক পর্যালোচনার প্রয়োজন রয়েছে। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বিবৃতি তুলে ধরে রাশিয়ার নিউজ এজেন্সি জানায়, গ্যামালেয়া রিসার্চ ইনস্টিটিউট উদ্ভাবিত ভ্যাকসিনের প্রথম ব্যাচ উৎপাদিত হয়েছে।পুতিন বলেছেন, ভ্যাকসিনটি নিরাপদ এবং এটি তার মেয়ের শরীরে পুশ করা হয়েছে। যদিও ক্লিনিক্যাল টেস্ট এখনো সম্পন্ন হয়নি এবং চূড়ান্ত টেস্টে দুই হাজারেও বেশি লোকের মধ্যে এটি পুশ করা হবে, চলতি সপ্তাহেই এ কার্যক্রম শুরু হয়েছে। পশ্চিমা বিজ্ঞানীরা ভ্যাকসিনটি সম্পর্কে সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন, দ্রæত উদ্ভাবিত ভ্যাকসিনটি বিপদজনক হতে পারে, তবে মস্কো তাদের সমালোচনা প্রত্যাখ্যান করে বলেছে, তারা মস্কোর গবেষণাকে খাটো করে দেখার চেষ্টা করছে। রাশিয়ার উদ্ভাবিত ভ্যাকসিনটির নাম “স্পুটনিক ভি”। সাবেক সোভিয়েত আমলে ১৯৫৭ সালে স্পুটনিক স্যাটেলাইট পাঠানো হয়, এই নামেই ভ্যাকসিনের নাম রাখা হয়। এদিকে কোভিড-১৯ মহামারীর ভ্যাকসিন উদ্ভাবনের ঘোষণার সপ্তাহ না পেরোতেই এর উৎপাদন শুরু করেছে রাশিয়া।স্পুটনিক-ভি নামের এই টিকা করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে সক্ষম দাবি করে খুচরা বাজারে বিক্রির লক্ষ্যে শনিবার থেকে এর উৎপাদন শুরু করল দেশটি। রাশিয়ার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে রুশ বার্তা সংস্থা ইন্টারফ্যাক্স এ খবর দিয়েছে। বিশ্বে করোনা প্রতিরোধে রাশিয়াই ‘প্রথম ভ্যাকসিন’ আবিষ্কার করেছে। যদিও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এই ভ্যাকসিন বিশ্ববাসীর জন্য কতটুকু নিরাপদ হবে সে বিষয়ে ইতিবাচক কোনো সাড়া এখনও পর্যন্ত দেয়নি।
Link copied!