শুক্রবার, ১৪ জুন, ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

উপসচিব হলেন ২২০ কর্মকর্তা

প্রকাশিত: ০৩:৪০ এএম, সেপ্টেম্বর ২, ২০২০

উপসচিব হলেন ২২০ কর্মকর্তা

ডেইলি খবর ডেস্ক: সিনিয়র সহকারী সচিব ও সমমর্যাদার ২২০ কর্মকর্তাকে উপসচিব পদে পদোন্নতি দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। সম্প্রতি এসব কর্মকর্তারা বিলুপ্ত অর্থনৈতিক ক্যাডার থেকে প্রশাসন ক্যাডারে একীভূত হয়েছিলেন। মঙ্গলবার (১ সেপ্টেম্বর) জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে এই পদোন্নতি দিয়ে আদেশ জারি করা হয়েছে। ২০০৬, ২০০৯, ২০১০, ২০১২, ২০১৩, ২০১৫, ২০১৬, ২০১৭, ২০১৮ সাল থেকে উপসচিব হিসেবে এই কর্মকর্তাদের পদোন্নতি ধরা হয়েছে। পদোন্নতি পাওয়া এসব উপ-সচিবদের পদায়ন করে করা হয়নি, তাদের জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওএসডি) করা হয়েছে। পদোন্নতিপ্রাপ্তদের মধ্যে বিদেশে বাংলাদেশ দূতাবাসের তিনজন কর্মকর্তা রয়েছেন। তারা হলেন- থাইল্যান্ডে বাংলাদেশ দূতাবাসের কাউন্সিলর ড.মোহাম্মদ খায়রুল হাসান, ইতালিতে ইকনোমিক কাউন্সিলর মানুষ মিত্র এবং দক্ষিণ কোরিয়ার কর্মাশিয়াল কাউন্সিলর ড. মো. মিজানুর রহমান। বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষে দায়িত্ব পালনের জন্য প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে সংযুক্ত শাহ মোহাম্মদ মাহবুবও পদোন্নতি পেয়ে উপসচিব হয়েছেন। বাকিরা বিভিন্ন মন্ত্রণালয়-বিভাগে প্রধান, সিনিয়র সহকারী প্রধান, উপপ্রধান, যুগ্মপ্রধান পদে কর্মরত আছেন। গেজেটে বলা হয়, সরকারি কর্মকমিশনের সমন্বিত মেধা তালিকা অনুসারে পুলে যোগদানকারী ইকোনমিক ক্যাডারের কর্মকর্তা এবং ইকোনমিক ক্যাডারের কর্মকর্তাদের জ্যেষ্ঠতা স্ব স্ব ব্যাচের প্রশাসন ক্যাডারের কর্মকর্তাদের সঙ্গে নির্ধারিত হবে। আন্তঃমন্ত্রণালয় কমিটির সুপারিশ অনুযায়ী একীভূত ইকোনমিক ক্যাডারের কর্মকর্তাদের সমপদে পদায়ন, জ্যেষ্ঠতা নির্ধারণ এবং একীভূতকরণের সব প্রক্রিয়ার পূর্ণাঙ্গ বাস্তবানয় সম্পন্ন হবে। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের তথ্যানুযায়ী, পদোন্নতির পর এখন উপ-সচিবের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে এক হাজার ৭৮০ জন। পদোন্নতিপ্রাপ্তদের অনলাইনে যোগদান করতে বলা হয়েছে। উল্লেখ্য, ২০১৮ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইকোনমিক ক্যাডারকে প্রশাসন ক্যাডারের সঙ্গে একীভূত করতে অনুশাসন দেন।
Link copied!