শুক্রবার, ২৪ মে, ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

ভক্ষক নয়, রাজনীতিবিদরা হবেন রক্ষক: হাইকোর্ট

প্রকাশিত: ০১:৩৪ পিএম, মে ৩০, ২০২৩

ভক্ষক নয়, রাজনীতিবিদরা হবেন রক্ষক: হাইকোর্ট

রাজনীতিবিদদের ভক্ষক নয়, দেশের সম্পদের রক্ষক হতে বলেছেন হাইকোর্ট। দুর্নীতির মামলায় বিএনপির দুই নেতার সাজার রায় বহাল রেখে মঙ্গলবার দেয়া এক আদেশের পর্যবেক্ষণে এ কথা বলেন বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি খিজির হায়াতের হাইকোর্ট বেঞ্চ। বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু এবং ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির আহ্বায়ক আমান উল্লাহ আমান ও তার স্ত্রী সাবেরা আমানের বিরুদ্ধে বিচারিক আদালতের দেয়া রায় বহাল রেখে আদেশ দেন হাইকোর্ট। পৃথক মামলায় বিচারিক আদালতে টুকুর নয় বছর কারাদণ্ড এবং আমানের ১৩ বছর ও তার স্ত্রী সাবেরা আমানের তিন বছর কারাদণ্ড দেয়া হয়। চার শ’ পৃষ্ঠার রায়ে দুর্নীতির বিষয়ে বেশ কিছু পর্যবেক্ষণ দেন আদালত। হাইকোর্ট বলেন, রাজনীতিবিদরা দেশের সম্পদের রক্ষক হবেন, ভক্ষক নন। রাজনীতিবিদরা জনগণ ও দেশের কল্যাণে নিজেদের উৎসর্গ করেই রাজনীতিতে জড়িত হন উল্লেখ করে আদালত বলেন, জনগণ ও দেশের কল্যাণের জন্য এক ধরনের মহান ত্যাগ ও নিষ্ঠার জন্য কাজ করেন রাজনীতিবিদেরা। হাইকোর্ট বলেন, টাকা উপার্জনের অনেক পথ রয়েছে। বৈধ ও আইনগতভাবে অনেকভাবেই টাকা উপার্জন করা যায়। কিন্তু রাজনীতি কখনো টাকা-অর্থ উপাজনের পেশা হতে পারে না। রাজনীতিবিদেরা সময় ব্যয় করেন মানুষ ও দেশের কল্যাণে। এই অর্থ উপার্জনের পেছনে রাজনীতিতে লিপ্ত হওয়া উচিত নয় বলেও মন্তব্য করেন আদালত। হাইকোর্ট বলেন, দেশের সব মানুষ ও জনসাধারণের ওপর দুর্নীতি বিস্তর প্রভাব পড়ে। আদালত আরও বলেন, এই বিশ্বায়নের পরিবর্তনের অপেক্ষায় দেশের নাগরিকরা বসে থাকতে পারে না। আমাদের প্রত্যেককে সেই পরিবর্তনের অংশ হতে হবে। বাংলাদেশিদের জন্য বাংলাদেশি ছাড়া কেউ দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াই করতে পারবে না। দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য ওপর থেকে নিচ পর্যন্ত সবাইকে অঙ্গীকারাবদ্ধ হতে হবে। হাইকোর্ট বলেন, একটি বৈশ্বিক আন্দোলন হিসেবে আমাদের লক্ষ্য হলো বিশ্বে এবং বাংলাদেশে দুর্নীতির অবসান ঘটানো, তা যেখানেই হোক বা যে রূপেই হোক না কেন। আমরা সমাজ থেকে সমস্ত ধরনের দুর্নীতি ও অর্থপাচারের উপশম, প্রতিরোধ ও মূলোৎপাটন করার চেষ্টা করে যাচ্ছি।
Link copied!