মঙ্গলবার, ২১ মে, ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

কর্ণফুলী গ্যাস চুরিতে ওরা ১২ জন

প্রকাশিত: ০৯:৫৬ এএম, সেপ্টেম্বর ১৮, ২০২২

কর্ণফুলী গ্যাস চুরিতে ওরা ১২ জন

ডেইলি খবর ডেস্ক: কর্ণফুলী গ্যাস চুরিতে ওরা ১২ জন। এতে নের্তৃত্ব দিয়েছেন কর্ণফুলী গ্যাসের এমডি নিজেই। তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতেও চলছে গড়িমশি। তদন্ত সংশ্লিষ্ট সুত্রগুলো জানায় কর্ণফুলী গ্যাসের চোরের সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে নিয়োগ দুর্নীতি, জালিয়াতি করে বিভিন্ন শিল্পপ্রতিষ্ঠানে গ্যাস-সংযোগ, পদোন্নতিতে অনিয়মসহ ১২টি খাতে দুর্নীতির অভিযোগ প্রমানীত। অভিযোগের তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়ার পর কর্ণফুলী গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেডের (কেজিডিসিএল) ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) এম এ মাজেদসহ ১২ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশ করেছে পেট্রোবাংলা। শনিবার পেট্রোবাংলার পরিচালক (প্রশাসন) মো. আলতাফ হোসেন সংবাদমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, '৩১ পাতার ওই তদন্ত প্রতিবেদনে যারা অভিযুক্ত সবার বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশ করা হয়েছে। 'চলতি বছরের মার্চে কেজিডিসিএলের বিভিন্ন অনিয়ম খতিয়ে দেখতে ৪ সদস্যের কমিটি গঠন করে পেট্রোবাংলা। কমিটি জুনের শেষ দিকে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়। এই কমিটির আহ্বায়ক ছিলেন পেট্রোবাংলার পরিচালক (পরিকল্পনা) আলী ইকবাল মো. নুরুল্লাহ। এছাড়া মহাব্যবস্থাপক (হিসাব) মো. নজরুল ইসলাম, মহাব্যবস্থাপক (মাইন অপারেশন) ডি এম জোবায়েদ হোসেনকে সদস্য ও মহাব্যবস্থাপক (সংস্থাপন) মো. আমজাদ হোসেনকে সদস্য সচিব করা হয়। তদন্ত কমিটি ১২টি খাতে অনিয়মের বিষয়ে তদন্ত করে। প্রতিবেদনে কেজিডিসিএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম এ মাজেদের বিরুদ্ধেও অনিয়ম-জালিয়াতির বিভিন্ন অভিযোগ আনা হয়। মহাব্যবস্থাপক ফিরোজ খানের বিরুদ্ধেও অভিযোগ উঠে আসে। একই সঙ্গে দুর্নীতির অভিযোগ এসেছে বিপণন-উত্তরের মহাব্যবস্থাপক প্রকৌশলী মো. শফিউল আজম খান, ব্যবস্থাপক বাসুদেব বিশ্বাস, মো. হাবিবুল গণি, উপমহাব্যবস্থাপক এ জে এম ছালেহউদ্দিন সারওয়ার, বিপণন-দক্ষিণ ডিভিশনের মহাব্যবস্থাপক প্রকৌশলী আমিনুর রহমানসহ এক ডজন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে।
Link copied!