মঙ্গলবার, ২১ মে, ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

আলোচিত অতিরিক্ত সচিব মাহবুব করিম ওএসডি

প্রকাশিত: ১১:৩১ এএম, আগস্ট ৬, ২০২০

আলোচিত অতিরিক্ত সচিব মাহবুব করিম ওএসডি

রেলপথ মন্ত্রণালয়ের আলোচিত অতিরিক্ত সচিব মাহবুব কবিরকে ওএসডি করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৬ আগস্ট) জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে এ বিষয়ে একটি প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, রেলপথ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মাহবুব কবিরকে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হিসেবে ন্যস্ত করা হলো। অবিলম্বে এ আদেশ কার্যকর হবে।

মেধাবী ও কর্মঠ কর্মকর্তা হিসেবে ব্যাপক সুনাম রয়েছে মাহবুব করিমের। বিশেষ করে বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষে দায়িত্ব পালনের সময় তিনি ব্যাপক প্রশংসিত হন। চলতি বছরের ২৫ মার্চ এক প্রজ্ঞাপনে তাকে রেলপথ মন্ত্রণালয়ে বদলির আদেশ দেয়া হয়। এই মন্ত্রণালয়ে যোগদানের পর বিভিন্ন অনিয়ম ও দুর্নীতি নিয়ে কথা বলেছেন আলোচিত এই অতিরিক্ত সচিব। বিশেষ করে রেলের টিকিট, নিয়োগ, বদলি এসব নিয়ে বেশ সোচ্চার ছিলেন। এছাড়া টিকেট কালোবাজারি বন্ধে তিনি বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছিলেন।

রেলওয়ের যাত্রীসাধারণের কাছে মাহবুব কবির মিলন বেশ জনপ্রিয় একটি নাম। রেলকে জনবান্ধব করতে তিনি বেশ কিছু উদ্যোগ গ্রহণ করেছিলেন। এর মধ্যে আছে, টিকিট কাটতে এনআইডি বাধ্যতামূলক করা, অনলাইনে টিকিটের টাকা রিফান্ড করা, রেলসেবা অ্যাপের মাধ্যমে ফটো/ভিডিও যুক্ত করে তাৎক্ষণিক অভিযোগ প্রদানের ব্যবস্থা ইত্যাদি। এছাড়া মাহবুব কবির মিলনের প্রচেষ্টার কারণে মোবাইল ব্যাংকিং সেবাদাতা বিকাশ তাদের নিরাপত্তায় ব্যাপক পরবর্তন এনেছে। এর ফলে প্রতারকেরা আর অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা চুরির সুযোগ পাবে না।

মাহবুব কবির ২০১৭ সালের আগস্ট মাস থেকে নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের সদস্য হিসেবে কর্মরত ছিলেন। সবশেষ গত বছরের ৩১ ডিসেম্বর থেকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। কিন্তু হঠাৎ তার স্থলে নতুন চেয়ারম্যান নিয়োগ দিয়ে তাকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান থেকে সরিয়ে দেয়া হয়।

মাহবুব কবির নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষে দায়িত্ব পালনকালে বেশ কিছু বহুজাতিক কোম্পানির ভেজাল ও ক্ষতিকর কোম্পানির পণ্য আটকে দেন। তার প্রচেষ্টায় বর্তমানে চট্টগ্রাম বন্দরে প্রায় ৪৫ কোটি টাকার এমবিএম আটকে রয়েছে। সম্প্রতি তিনি কৃষিপণ্যের জন্য আমদানিকারক ৪১টি প্রতিষ্ঠানের ক্ষতিকর পণ্য শনাক্ত করেন। বিষয়টি নিয়ে উচ্চ পর্যায় থেকে তার ওপর ক্ষোভ প্রকাশ করা হয়। এছাড়া গত সপ্তাহে একটি অনলাইনে অনুষ্ঠানে মাহবুব করিম প্রধানমন্ত্রীর কাছে দশজন সৎ অফিসার দিয়ে একটি টিম গঠনের আহ্বান জানান। যারা বিভিন্ন অনিয়ম ও দুর্নীতির তথ্য অনুসন্ধান করবে। এই বক্তব্যের পরই তাকে ওএসডি করা হলো।

এদিকে একই আদেশে জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন কার্যালয়ের রেজিস্ট্রার জেনারেল মানিক লাল বণিককে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব করা হয়েছে। এছাড়া স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব শোয়েবুল আলমকে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ে, স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব সুলেমান খানকে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে এবং সমাজ কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের (প্রকল্প পরিচালক রস্ক প্রকল্প হিসেবে বদলির আবেশাধীন) অতিরিক্ত সচিব মোহাম্মদ ইসমাইলকে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ে বদলি করা হয়েছে।

আদেশে, ২৭ জুলাই সমাজ কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মোহাম্মদ ইসমাইলকে রিচিং আউট অ্যান্ড স্কুল (রস্ক) প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক হিসেবে বদলি আদেশ বাতিল করা হয়েছে।

Link copied!